1. send2titas@gmail.com : admincn :
  2. editorctvnews@gmail.com : Channel News Admin : Channel News Admin
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১১:২৯ পূর্বাহ্ন

বগুড়ায় কারারক্ষীর লাশ উদ্ধার

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৭১ ১০ জন পড়েছে

বগুড়া থেকে, এস.এম.জয় : বগুড়ায় জেলখানার সীমানা প্রাচীরের বাইরে ড্রেনের ভেতর থেকে এক কারারক্ষীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে ৫টার দিকে জেলখানার দক্ষিণ পূর্ব কোণে অবস্থিত ২নং গেট সংলগ্ন ড্রেন এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ উদ্ধারের সময় তার মাথার বাঁ পাশে ক্ষত স্থান থেকে রক্ত পড়ছিল। তবে কিভাবে তার মৃত্যু হলো সে বিষয়ে কারা প্রশাসন এবং পুলিশ কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিকভাবে কিছু বলতে পারেন নি।
নিহতের নাম একরামুল হক(৪০)। তিনি নওগাঁ জেলার বদলগাছি উপজেলার কান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে। একরামুল বগুড়া কারাগারের ব্যারাকে থেকেই দায়িত্ব পালন করতেন। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) স্নিগ্ধ আখতার।
বগুড়া জেলখানার জেলার পদে কর্মরত ফরিদুর রহমান রুবেল জানান, সীমানা প্রাচীরের দক্ষিণ পূর্ব কোণায় অবস্থিত ২নং গেট এলাকায় বুধবার দিবাগত রাত ১টা থেকে ৩টা পর্যন্ত দুই ঘন্টা প্রহরী হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য সেখানে যান একরামুল হক। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে হারেজ নামে কর্তব্যরত রিজার্ভ হাবিলদার আমাকে জানান যে, কারারক্ষী একরামুলের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। তারপর খুঁজতে গিয়ে বেলা ৩টার দিকে ২নং গেট সংলগ্ন ড্রেনের ভেতরে তার লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়। এর পর পরই পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।’
বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে গেছে যে, কারারক্ষীর পোষাক ও জুতা পরা অবস্থায় একরামুলের লাশ ড্রেনের ভেতরে উপুর হয়ে পড়ে আছে। তার মাথার অংশ ড্রেনের ওপর নির্মিত কালভার্টের দিকে ছিল। বুধবার দিবাগত রাত ৩টায় একরামুলের কর্মঘন্টা শেষ হওয়ার পর তার নিখোঁজ হওয়ার তথ্য কেন ১১ ঘন্টা পর বেলা ২টায় পাওয়া গেল-এমন প্রশ্নের জবাবে জেলার ফরিদুর রহমান রুবেল বলেন, ‘একরামুলের দায়িত্ব শেষ হওয়ার পর সেখানে মামুন নামে অপর এক কারারক্ষীর দায়িত্ব পালনের কথা ছিল। কিন্তু পরে জেনেছি যে অসুস্থতার কারণে সে (মামুন) দায়িত্ব পালন করেনি।’
কারারক্ষী মামুনের অবস্থান জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মামুন বর্তমানে ডিউতেই আছেন।’ একরামুলের রহস্যজনক মৃত্যু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটা তদন্তাধীন বিষয়। তদন্ত ছাড়া কিছু বলা যাবে না।’
কারারক্ষী একরামুলের শ্যালক রবিউল ইসলাম জানান তার ভগ্নিপতির কোন রোগ ব্যধি ছিল না।
বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) স্নিগ্ধ আখতার “এশিয়ান টিভি” -কে জানান, জেল খানার ১নং গেটসহ সীমানা প্রাচীরের বাইরে প্রায় সকল স্থানে সিসি ক্যামেরা থাকলেও যেখান থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে সেখানে কোন সিসি ক্যামেরা ছিল না। মৃত্যুর কারণ জানতে আমরা পুরো বিষয়গুলো তদন্ত করে দেখবো। একজন ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে লাশের সুরতহাল করা হবে এবং তারপর ময়না তদন্ত করা হবে। তিনি বলেন, আমাদের একাধিক টিম এরই মধ্যে তদন্ত শুরু করেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করতে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পড়ুন
© All rights reserved © 2018 Channel News
Design & Developed By: Gausul Azam IT